কুরআন থেকে নেওয়া জীবনের পাঠ- Quran Theke Neya Jiboner path আরিফ আজাদ। বইয়ের রিভিউ

জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্র মিলে যায় কুরআনের সাথে। শুধু নিজেকে মিলিয়ে নিতে হয়। আল্লাহ তায়ালা কুরআনের সাথে মানুষের জীবনকে যে নিবিড় ঘনিষ্ঠতায় রেখেছে,সেটা উপলদ্ধি করতে পারলে শত প্রতিকূলতায়ও জীবেন হতাশ হবেন না। পাহাড়সম বিপদেও নিজেকে অটুট আর অবিচল মনে হবে।

সামান্য বিপদে মানুষ যেখানে দিশেহারা হয়ে পরে,আসমানী স্বীকৃতি লাভের পর আম্বিয়া আলাইহিমুস-সালাম কত কঠিন সময়ে কী সুন্দর সংযম আর ধৈর্যের সাথে নিজেকে এগিয়ে নিয়েছেন।

এমন পরিস্থিতে তাদের জীবনের সাথে আমাদের জীবনকে মিলিয়ে নেয়ার যোগসূত্র তৈরি করে দেয় এই "আল কুরআন"। আর এই কাজটাকে অসাধারণ ভাষ্যে নিপুণ কারুকার্যে সাজিয়েছেন" কুরআন থেকে নেওয়া জীবন পাঠ" বইটিতে।

কুরআন থেকে নেওয়া জীবন পাঠ বইটিতে গতানুগতিক গদ্য বা খটমটে প্রবন্ধ নয়, প্রতিটা অধ্যায়ে পাঠক দেখতে পাবে তার জীবনের প্রতিচ্ছবি, জীবন থেকে নেওয়া ঘটনা অথবা চারপাশের চিরচেনা জগতের সাথে কুরআন কীভাবে ওতপ্রোতভাবে সম্পর্কিত। জীবনের গল্প পড়তে পড়তে পাঠক ঢুকে পড়বে কুরআনের ভাবনার জগতে, সেই জগত থেকে আলো ধার করে পাঠক আবার ফিরে আসবে জীবনের ধারায়— বইটা সাজানো ঠিক এভাবেই, আলহামদুলিল্লাহ।

দুটো জিনিস নবিজি (সাঃ) আমাদের জন্য রেখে গেছেন- কুরআন এবং সুন্নাহ।দুনিয়ার যত মতবাদ,তত্ত্ব কিংবা আর্দশই সামনে আসুক,কুরআন আর হাদীসের মাপকাঠিতে তা যদি উত্তীর্ণ না হতে পারে,তাহলে তা দ্বিতীয় চিন্তা ব্যতিত পরিত্যাজ্য।কুরআন নাজিল হয়েছে সাড়ে চৌদ্দশ বছর আগে,কিন্তু কুরআনের প্রাসঙ্গিকতা সকল যুগ,কাল আর সময়-ব্যাপী।


বই: কুরআন থেকে নেওয়া জীবনের পাঠ

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় ইসলামি লেখক আরিফ আজাদ। আরিফ আজাদের লেখা বেশকিছু বই আমি পড়েছি।উনার অন্যান্য বইয়ের মতো এই বইটিও সহজ সরল ভাষায় লেখা।যারা নতুন বই  পড়া শুরু করেছেন তারাও এই বইটি পড়তে পারেন।একেবারে প্রাঞ্জল ভাষায় লেখা।

আরিফ আজাদ তার লেখা "কুরআন থেকে নেওয়া জীবনের পাঠ" বইটি নিয়ে তার অনুভূতি প্রকাশ করেছেন। প্রথমে মহান আল্লাহতায়ালার প্রশংসা করে এবং রাসুল (সা) এর উপর সালাম ও দরুদপাঠ করে লেখক বলেন, আজ থেকে সাড়ে চৌদ্দশ বছর আগে রামাদান মাসের এক নিশ্চুপ নিশুতি রাতে হেরা গুহায় জিবরাইল (আ) নিয়ে এসেছিলেন কুরআন। অন্ধকার প্রকোষ্ঠে সেই যে আলোর ফোয়ারা ছুটেছিলো।

কুরআন থেকে নেওয়া জীবনের পাঠ বইটি লেখকের কুরআন অধ্যয়নের নোটখাতা। লেখকের কুরআন নিয়ে ভাবনাগুলো যদি পাঠক ভাবতে উদ্ধুব্ধ করে,তারা যদি করআনের চোখ দিয়ে জীবনকে দেখার প্রয়াস পায় সেটায় লেখকের একমাত্র সার্থকতা। 

তারপরে অধ্যায়ে হতাশাগ্রস্ত মানুষদের নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। বেকার অসচ্ছল এবং আর্থিকভাবে নিদারুণ কষ্টে আছে এমন বহু মানুষ আমাদের চারিপাশে আছে।বিপদ-আপদ,দুঃখ-দুর্দ্দশা যখন আমাদের স্পর্শ করে,আমরা যখন হতাশ হয়ে পরি জীবন নিয়ে তখন আমরা আল্লাহর স্মরণ থেকে বিস্মৃত হয়ে পরি।কিন্তু এমনটা হওয়ার তো কথা ছিল না।হযরত মুসা (আ) যুবক অবস্থায় একবার এক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার মুখোমুখি হয়ে নিজের মাতৃভূমি ছেড়ে মাদইয়ান নামক জায়গায় পালিয়ে আসতে হয়।সেখানে হযরত মুসা আলাইহি সাল্লাম আল্লাহর তায়ালার কাছে একটি দোয়া বরকতে অনেক বড় বিপদ থেকে মুক্তি লাভ করে।

দুনিয়াতে ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট নিয়ে ভূরি ভূরি বই,লেচার,আর্টিকেল পাওয়া যাবে।কিন্তু মুসা (আ) এর দুয়া যদি আপনি জীবনে ধারন করতে পারেন তাহলে এর চেয়ে ভালো কোনো ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্টের পাঠ দুনিয়ার কোথাও পাবেন না। 

বইটিতে আমার যে বিষয়টি সবচেয়ে ভালো লেগেছে তা হলো এই বইয়ের কোরআনিক মোটিভেশন। ইব্রাহিম (আ:)এর  মহা আনুগত্য, নূহ (আ:) এর অপার ধৈর্য্য, মূসা (আ:) এর বুদ্ধিদীপ্ত দোয়া, সূরা ফালাকে হিংসুকের গোপন রহস্য, লাজুক নবীকন্যারদের তাকওয়া, প্রতিটি আয়াতের চিন্তাশীল ব্যাখ্যাসহ বইয়ের প্রতিটি পৃষ্ঠা যেন প্রতিটা 'ব্যাকুল হৃদয়ের আকুল সঙ্গীত'।

মনুষ্য মোটিভেশন বিলীন হতে পারে। কিন্তু কোরআনিক মোটিভেশন চিরন্তন। যা এই বইটিকে নিয়ে গেছে অনন্য শিখরে। গল্প, সাহিত্য, প্রবন্ধের সংমিশ্রনে, চিন্তাশীল শব্দচয়নে, সময়োপযোগি এমন একটি ইসলামিক বই যা ছোট-বড়, চাকরিজীবী- ব্যবসায়ী, নারী- পুরুষ  সকলের জন্য  সহজ বোধগম্য এবং প্রতিটি মুসলিমের অন্তরের খোরাক হবে ইনশাআল্লাহ। 


বইয়ের নাম:- কুরআন থেকে নেওয়া জীবনের পাঠ।

প্রকাশনী:- সত্যায়ন প্রকাশন।

লেখক:- আরিফ আজাদ।

দাম:- ৩৩০ টাকা।

পৃষ্ঠা :- ১৮৩ পেইজ।

প্রথম প্রকাশ:- ২০২৩ইং সাল।

জনরা:- ইসলামি আত্ম উন্নয়নমূলক।

প্রচ্ছদ:- ওয়ালিদ ইবন হোসাইন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ