নন্দিত নরকে-Nondito noroke হুমায়ূন আহমেদ। বই রিভিউ

১৯৭২ সালে হুমায়ুন আহমেদ 'নন্দিত নরকে'  সাহিত্য প্রকাশ করে জানান দেন যে বাংলাদেশ পেতে যাচ্ছে যাচ্ছে এক ঐতিহাসিক সাহিত্যিক। 'নন্দিত নরকে' বইটি বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছিলো সেই সময় পৃথিবীতে কয়েকটি ভাষায় ট্রান্সলেট করেও মুদ্রিত হয়েছে। আর এটিই হুমায়ুন আহমেদের সর্বপ্রথম কোনো সাহিত্য। এখন আমার এই বই রিভিউ করব।



★সারসংক্ষেপ: 

নন্দিত নরকে একটি সামাজিক উপন্যাস যেখানে লেখক একটি দরিদ্র পরিবারের অতি সাধারণ জীবন যাপন তুলে ধরেছেন। গল্পটি একটি মানসিক বিকারগস্ত,নন্দিত নরকে মেয়ে রাবেয়াকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয়েছে। এছাড়াও খোকার পাশের বাসার শিলুর প্রতি ভালোবাসার বর্ণনাও পাওয়া গেছে। 

হঠাৎ কোনো এক চৈত্র মাসে রাবেয়া হারিয়ে গিয়েছিল। তারপর সারাদিন খুঁজাখুঁজির পর রাত আটটায় মাস্টার কাকার সঙ্গে বাড়ি ফিরে এলো। এর কিছুদিন পর রাবেয়ার মাঝে কিছু শারীরিক পরিবর্তন আসে। এসব পরিবর্তনের জন্য রাবেয়াকে সবাই সবার সন্দেহ করে পোয়াতি। রাবেয়ার বাবা তাকে বিয়ে দেওয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেও তা পারেননি। 

লোকলজ্জার ভয়ে রাবেয়াকে গর্ভপাত করানো হয় এবং এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে রাবেয়ার মৃত্যু হয়। রাবেয়ার মৃত্যুর পরপরই মন্টু, মাস্টারকে হত্যা করে ফেলে। মাস্টারকে মৃত্যুর অপরাধে মন্টুকে পুলিশ ধরে নিয়ে যায়। মাস্টার কাকার হত্যার অপরাধে মন্টুর ফাঁসি হয়।

এভাবেই উপন্যাসটির করুণ সমাপ্তি হয়।


আমার মন্তব্য: 

হুমায়ূন আহমেদের প্রথম উপন্যাস হিসেবে এটি এক কথায় অসাধারণ।উপন্যাসের অনেক লাইন আমাকে প্রতি মুহুর্তে ভাবিয়েছে। নারীরা কত অসহায়,মানসিক প্রতিবন্ধীদের ও কোনো ছাড় নাই,আজকের সমাজেও নারীরা কত অসহায় আশেপাশে তাকালে বুঝা যায়।উপন্যাসের নামটাও কত আকর্ষণীয়। নন্দিত অর্থ আনন্দ, যা সুখ প্রকাশ করে  অন্য দিকে নরক দুঃখ প্রকাশ করে। গল্পে রাবেয়ার কে এতো বড় ক্ষতি করলো তা আমাকে ভাবাচ্ছে প্রতি মুহুর্তে? মন্টুর ভাবনা সত্যি নাকি অন্য কেউ?


চরিত্র :  খোকা,রাবেয়া,রুনু, মন্টু, বাবা,মা, শফিক(মাস্টার কাকা)।পাশের বাসার শিলু,নাহার ভাবি।


আশা করি এতটুকুতে মূল গল্পটা অনেকটাই বুঝা যাচ্ছে। যেহেতু উপন্যাসের রচনাকাল ১৯৭০, গল্পটা মূলতঃ ৬০ এর দশকের আংশিক কোন ঘটনা বা লেখকের কল্পনা। আমরা মনে করি, প্রযুক্তির ব্যবহার বুঝি  মানুষের নৈতিক  অধঃপতন ঘটিয়েছে। কিন্তু না। জন্মলগ্ন থেকেই মানুষের সাথে সাথে অমানুষের সহবস্থান। সুযোগ পেলেই মানুষের ভিতরের পশুটা জেগে উঠে। মেয়েমানুষকে  মাংসপিণ্ড ছাড়া আর কিছু ভাবতে না পারা পুরুষ মানুষ  তখন যেমন ছিল, এখনও আছে। একদম গায়ে কাটা দেওয়া একটা ঘটনা।একটা সতর্কবার্তা।সবমিলিয়ে অসাধারণ।


বইয়ের নাম : নন্দিত নরকে

লেখক: হুমায়ূন আহমেদ 

ধরন: সামাজিক উপন্যাস 

পৃষ্ঠা : ৭৮

মূল্য : ২০০টাকা

প্রচ্ছদ : কাইয়ুম চৌধুরী

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ